রাঙ্গুনিয়ায় বন্য হাতির আক্রমণে একজন বৃদ্ধের মৃত্যু।

সকালের কণ্ঠ

মুহাম্মদ দেলোয়ার হোসাইন, রাঙ্গুনিয়া প্রতিনিধিঃ

চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় বন্য হাতির আক্রমণে মুহাম্মদ ইউসুফ সওদাগর (৮০) নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

বিজ্ঞাপন

মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) ভোর ৫টার দিকে উপজেলার সরফভাটা ইউনিয়নের পশ্চিম সরফভাটা মৌলানা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
নিহতের আত্মীয় মোহাম্মদ সেলিম জানান, ভোরে মসজিদে নামাজ আদায়ের জন্য যাচ্ছিলেন ইউসুফ সওদাগর। যাওয়ার পথে হঠাৎ বন্য হাতির দলের সামনে পড়ে যান তিনি। পালিয়ে যাওয়ার চেষ্ঠা করলে একটি হাতি তাকে পা দিয়ে পিষ্ট করে এবং শুড়ে তুলে আছাড় মারে। এতে ঘটনাস্থলেই তাঁর মৃত্যু হয়।
নিহত ইউসুফ ওই এলাকার আবদুর রহিমের ছেলে। তার পরিবারে স্ত্রী, ৩ ছেলে ও ৪ কন্যা সন্তান রয়েছে। একই দিন আছরের নামাজের পর জানাজা শেষে তার লাশ দাফন করা হয়।
এই ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান শেখ ফরিদ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘প্রতিবছরের ন্যায় এবছরও বন্য হাতি নিয়মিত তান্ডব শুরু করেছে। ইতিমধ্যে দুই বার বন্য হাতির পাল সরফভাটার পাহাড়ি এলাকা থেকে কয়েক কিলোমিটার দূরে লোকালয়ে চলে এসেছে। এরপরও বন অধিদপ্তর কার্যকর কোন ব্যবস্থা নেয়নি। আমি গত ২৪ নভেম্বর উপজেলা পরিষদের মাসিক সমন্বয় সভায় এই বিষয়টি তুলে ধরলে বন অধিদপ্তর প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি নিয়েছিলেন জানালেও বাস্তবে তার কিছুই করেননি। এরফলে পুনরায় ৩/৪টি হাতির পালন রাতে পাহাড় থেকে আনুমানিক ১০ কিলোমিটার দূরে পশ্চিম সরফভাটা সুচিয়া পাড়া এলাকায় আসে। ওই খানে মসজিদের কাঁচও ভাংচুর করে। ভোরের দিকে যাওয়ার সময় মাওলানা গ্রাম এলাকায় এক মুসল্লিকে মেরে ফেলে। বন অধিদপ্তর যদি কার্যকর কোন ব্যবস্থা নিতো, তবে এই লোকটা হয়তো এই ঘটনার মুখে পড়ে প্রাণ হারাতো না।’

উপজেলা রেঞ্জ কর্মকর্তা প্রহলাদ চন্দ্র রায় বলেন, ‘বনে খাবারের অভাবে হাতি বার বার লোকালয়ে চলে আসছে। আমরা এই ব্যাপারে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করেছি। যখনই হাতি লোকালয়ে চলে আসে তখনই আমাদের বনবিভাগের প্রশিক্ষিত কর্মীরা কোন ক্ষয়ক্ষতি ছাড়া এগুলো বনে ফেরত পাঠিয়েছে। এছাড়া লোকজনদের সতর্কভাবে চলাফেরা করতে আমরা ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলোতে প্রচারণা অব্যাহত রেখেছি। এরপরও প্রাণহানির ঘটনায় আমরা ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে ১ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ব্যবস্থা করছি।’

সুত্রে জানা যায়, প্রতিবছর ধান পাকলে রাঙ্গুনিয়ার পাহাড়ি এলাকায় নিয়মিত হানা দেয় বন্য হাতির পাল। মূলত খাবারের সন্ধানেই এগুলো লোকালয়ে চলে আসে। গত ৬ বছরে বন্য হাতির আক্রমনে রাঙ্গুনিয়ার ১৬ জন মানুষ প্রাণ হারিয়েছেন। আহত হয়েছেন অর্ধশতাধিক মানুষ।
বন উজাড় সহ হাতির আবাসস্থল ধ্বংস হওয়ায় হাতির পাল নিয়মিত লোকালয়ে চলে আসছে বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। তাই হাতির নিরাপদ আবাসস্থল তৈরি সহ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করার অনুরোধ জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

(Visited 1 times, 1 visits today)

আরও পড়ুন

মৃত্যু বেড়ে ৩১১১,…
বাংলাদেশে বিমানবন্দর উন্নয়নে…
দেশে করোনায় আরও…
কাল পবিত্র হজ
দোষী সাব্যস্ত মালয়েশিয়ার…
বিশ্বজুড়ে করোনা থেকে…
মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ…
গরুর মাংসের ঝাল…
ফের সীমান্তে ভারতীয়দের…

বৃহস্পতিবার শবে বরাত, তবে…

করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে বিশ্বজুড়ে প্রাণহানি…

করোনাঃ মৃত্যু ১, নতুন…

হাটহাজারীতে এক হাজার পরিবারের…

বন্ধু নির্বাচন করনীয়