রাউজান উপজেলা আওয়ামীলীগ এর সম্মেলন কাল ; তরুণদের প্রত্যাশার বাস্তবায়ন ঘটুক।

সকালের কণ্ঠ

মইনুদ্দিন জামাল চিশতী,সকালের কন্ঠঃ

বাংলাদেশের স্বাধীনতা, ইতিহাস, ঐতিহ্য ও গৌরবের সংগঠন “বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ” রাউজান উপজেলা শাখার বহুল প্রত্যাশিত ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন আজ রাত পোহালেই আগামীকাল অনুষ্ঠিত হবে। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে আমাদের রাউজানে আওয়ামীলীগ ও মুজিব আদর্শের চর্চা করতে গিয়ে বহু ঘাতপ্রতিঘাত সহ্য করতে হয়েছে। হারাতে হয়েছে বহু প্রাণ। কত নেতাকর্মী কত যে বিনিদ্র রজনী কাটিয়েছে তার কোন হিসাব নেই। আশির দশকে এনডিপির আমলে রাউজান হয়ে উঠেছিল সন্ত্রাসীদের অভয়ারণ্য। সন্ধ্যার পর কেউ ঘরবাড়ি থেকে বের হতে পারতো না। আমরা তো ছোট ছিলাম কিংবা জন্মই হয় নি তখন। কিন্তু এলাকার মুরুব্বীদের কাছ থেকে সেই সময়ের যেসব ঘটনা শুনেছি তা ভাবলেই গাঁ শিউরে উঠে। যাক সে কথা। পুরনো দিনের সেই কথাগুলো সবারই জানা। আমি আর বলতে চাই না।

১৯৯৬ সালে রাউজান আওয়ামীলীগ এর নেতৃত্বে আসেন বীর চট্টলার অন্যতম সম্ভ্রান্ত রাজনৈতিক পরিবারের সন্তান এ.বি.এম ফজলে করিম চৌধুরী। সেই থেকে রাউজান আওয়ামী পরিবার যেন নতুন প্রাণ ফিরে পায়। আলোর দিশারী এ.বি.এম ফজলে করিম চৌধুরীর বিচক্ষণ নেতৃত্ব আজ সারাদেশের মধ্যে রাউজানকে অন্যভাবে তুলে ধরেছে। টানা ৬ বার মনোনয়ন ও ৪ বার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হয়ে জননেত্রী শেখ হাসিনার আস্থার প্রতীক হয়ে আছেন আমাদের রাউজানবাসীর প্রিয় অভিভাবক এ.বি.এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি মহোদয়।

রাউজানে আজ অভাবনীয় উন্নয়ন কর্মযজ্ঞ এ.বি.এম ফজলে করিম চৌধুরীর নিরলস ঘুমহীন পরিশ্রম ও মেধার ফসল। রাউজানবাসীর ইতিহাসে এই মানুষটি সেরা নায়ক হিসেবে হৃদয়ের মণিকোঠায় জায়গা করে নিয়েছে। বিশেষ করে সামাজিক স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠায় এ.বি.এম ফজলে করিম চৌধুরীর দৃঢ় নেতৃত্ব সারাদেশের মধ্যে অনন্য। শিক্ষা, শিল্প, স্বাস্থ্য, তথ্যপ্রযুক্তি, যোগাযোগ ব্যবস্থা সহ সর্বক্ষেত্রে সমন্বয় করে রাউজানকে একটি সুন্দর ও শান্তির জনপদে পরিণত করেছেন তিনি।

২০১৮ সালের ২৯ শে ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিন সন্ধ্যাবেলা রাউজান মুন্সির ঘাটায় উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ের সামনে চট্টগ্রাম-৬ রাউজান আসনে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ মনোনীত “নৌকা” প্রতীকের প্রার্থী জননেতা এ.বি.এম ফজলে করিম চৌধুরীর বিপুল ভোটে বিজয় উপলক্ষে বিশাল আনন্দ মিছিল শেষে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় আমাদের আগামীর রাউজানের আলোর দিশারী জনাব ফারাজ করিম চৌধুরী বলেছিলেন, “আজকের এই বিজয়ের মাধ্যমে আমাদের বাংলাদেশের যে অগ্রযাত্রার গল্প, তা আজ আরেকধাপ এগিয়ে গেল। আপনি মুসলিম নাকি হিন্দু, আপনি বৌদ্ধ নাকি খ্রিষ্টান, আপনার ধর্ম কি? বর্ণ কি? বিশ্বাস কি? তা আমাদের জানা প্রয়োজন নেই। আমরা বাংলাদেশী, আমরা বাঙালী, আমরা রাউজানবাসী। আমরা যে যাই হই না কেন, আমরা সকলে একসাথে কাঁধে কাধ মিলিয়ে এগিয়ে যাবো ইনশাআল্লাহ।” এই বক্তব্যটি রাউজানের সকল তরুণদের কাছে একটি বিশেষ বার্তা পৌছে দিয়েছে। রাজনীতি বিমুখ সাধারণ তরুণদেরও নতুনভাবে উজ্জীবিত করেছে। এখন রাউজানের তরুণ শিক্ষার্থীরা উন্মুখ হয়ে বসে থাকে, কখন আসছে ফারাজ করিম চৌধুরীর নির্দেশনা।

মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের দল হিসেবে আওয়ামীলীগ এর প্রতি বর্তমান প্রজন্মের তরুণদের প্রত্যাশা খুব বেশী। আওয়ামীলীগ শুধুমাত্র কোন রাজনৈতিক দল নয়, এটি এখন একটি সুবিশাল পরিবার। আর রাউজান উপজেলা আওয়ামীলীগ বাংলাদেশের মধ্যে একটি অন্যতম সুশৃঙ্খল ইউনিট। যে কারণে রাউজানের তরুণরা প্রত্যাশা করছে একটি তারুণ্যনির্ভর সৃজনশীল ও মেধাবী নেতৃত্ব আসবে। যেটি কিনা রাউজানবাসীর অভিভাবক জনাব এ.বি.এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি মহোদয়ের নির্দেশনায় ও তরুণ প্রজন্মের আশার বাতিঘর জনাব ফারাজ করিম চৌধুরীর নেতৃত্বে রাউজানের সর্বস্তরের মানুষের আশা-আকাঙ্ক্ষার প্রতিফলন ঘটাবে।

আগামীকাল রাউজান উপজেলা আওয়ামীলীগ এর ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের সফলতা কামনা করছি।

(Visited 1 times, 1 visits today)

আরও পড়ুন

এবার মেয়েসহ করোনায়…
মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অনুদান…
মুক্তাগাছায় বিশ্ব জনসংখ্যা…
মরহুম ফজলে রাব্বি…
অবশেষে জনসম্মুখে মাস্ক…
বিশ্বে একদিনে করোনার…
বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষে চট্টগ্রাম…
বাংলালিংক-এর ত্রাণ কার্যক্রমের…
সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে…

বৃহস্পতিবার শবে বরাত, তবে…

করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে বিশ্বজুড়ে প্রাণহানি…

করোনাঃ মৃত্যু ১, নতুন…

হাটহাজারীতে এক হাজার পরিবারের…

বন্ধু নির্বাচন করনীয়