মঈনুদ্দিন জামাল চিশতী, রাউজানঃ

সন্ধ্যার পরে রাউজানের মানুষ যখন ঘরবাড়ি থেকে বের হতে পারতো না, সন্ত্রাসীদের হুমকি ও চাঁদাবাজির কারণে প্রবাসীরা যখন রাউজানে আসতে পারতো না, খুন-গুম চুরি-ডাকাতি রাহাজানি যখন ছিল রাউজানের নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার, সেই অন্ধকারাচ্ছন্ন রাউজানকে যিনি দিনরাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে চিরশান্তির রাউজান তথা উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত করেছেন তিনি হলেন রাউজানের মাটি ও মানুষের নেতা, রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, জনাব এ.বি.এম ফজলে করিম চৌধুরী এম.পি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ এর পক্ষ থেকে তাকে ৬ বার মনোনয়ন দিয়েছেন এবং তিনি রাউজানের ৪ বারের নির্বাচিত সংসদ সদস্য। গত প্রায় মাস দেড়েক ধরে রাউজানে যে আন্দোলন চলছে তা রাউজানবাসীর গণঅান্দোলনে রূপ নিয়েছে। এই আন্দোলন যাদের বিরুদ্ধে হচ্ছে সেই অভিযুক্ত সংগঠন মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটির পক্ষ হতে তাদের দোষ স্বীকার করে আজ পর্যন্ত নমনীয় কোন বক্তব্য আসেনি, বরং তারা মিথ্যাচারে লিপ্ত রয়েছে।

বিজ্ঞাপন

এরই ধারাবাহিতায় গত ১৮ জুন মঙ্গলবার ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটি। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে চবি’র অধ্যাপক আবুল মনসুর বলেন, “এ.বি.এম ফজলে করিম চৌধুরীর নিজস্ব একটি বাহিনী আছে যার নেতৃত্বে রাউজানে মুনিরীয়া তরিক্বতের অনুসারীদের উপর হামলা হচ্ছে। অন্যান্য আওয়ামীলীগ এর নেতাদের সাথে আমাদের সম্পর্ক আছে, কিন্তু তাদের সাথে আমাদের কোন সমস্যা হচ্ছে না”। এরকম একটি মিথ্যা ও বানোয়াট বক্তব্য দিয়ে বিভ্রান্ত করা হচ্ছে, যা আমাদেরকে চরমভাবে ব্যথিত করেছে। আবুল মনসুরের অবান্তর ও ভিত্তিহীন এই বক্তব্যের প্রতিবাদ স্বরূপ “সেন্ট্রাল বয়েজ অব রাউজান” তাকে আইনের আওতায় আনা ও চট্টগ্রামে অবাঞ্ছিত করার দাবিতে বিভিন্ন গণমাধ্যমে একটি বিবৃতি প্রেরণ করে, যার দরুন গত ২১ জুন ২০১৯, শুক্রবার “দৈনিক পূর্বকোণ” পত্রিকার ২য় পৃষ্ঠায় “অধ্যাপক মনসুরকে আইনের আওতায় আনতে হবে” শিরোনামে রাউজানের নিজস্ব সংবাদদাতা সংবাদ পরিবেশন করে। এরই ফলশ্রুতিতে আজ (২২ জুন ২০১৯, শনিবার) দৈনিক পূর্বকোণ, দৈনিক আজাদী ও দৈনিক পূর্বদেশ এর ১ম পৃষ্ঠায় “কাগতিয়া দরবার, মাদরাসা ও প্রাণপ্রিয় পীর সাহেবের মান-মর্যাদা রক্ষায় জীবন দিতেও প্রস্তুত তরিক্বতপন্থীরা” শীর্ষক শিরোনামে একটি বিজ্ঞপ্তি-সংবাদ প্রকাশ করা হয়। এতে ড. আবুল মনসুর কিংবা মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটির কোন সদস্য জননেতা এ.বি.এম ফজলে করিম চৌধুরীর বিরুদ্ধে নয় বলে উল্লেখ করা হয়। যদি তাই হয়ে থাকে তবে ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সংবাদ সম্মেলনে অধ্যাপক আবুল মনসুর তার লিখিত বক্তব্যে এ.বি.এম ফজলে করিম চৌধুরী এম.পি’র নাম স্পষ্টভাবে বলে মিথ্যাচার করেছে কেন? এই প্রশ্নটা আসা স্বাভাবিক। এ.বি.এম ফজলে করিম চৌধুরীর বিরুদ্ধে দেওয়া বক্তব্যের ভিডিও ক্লিপ সংরক্ষিত আছে বলে জানান সেন্ট্রাল বয়েজ নেতৃবৃন্দ। এছাড়াও, ধর্মীয় তরিক্বতের নামে এমন মিথ্যাচার করা থেকে বিরত থাকার আহবান জানান তারা। “সেন্ট্রাল বয়েজ অব রাউজান” সমগ্র চট্টগ্রামের মধ্যে সুপরিচিত একটি সামাজিক শিক্ষাবান্ধব সংগঠন। বিভিন্ন সৃজনশীল কর্মকান্ডের মাধ্যমে এই সংগঠন সকলের কাছে প্রশংসায় সিক্ত হয়েছে। সকল ধর্মীয় সংগঠনকে সেন্ট্রাল বয়েজ অব রাউজান সম্মানের চোখে দেখে। তবে সাম্প্রতিক সময়ে মুনিরীয়া যুব তবলীগ কমিটির উগ্র মানসিকতা সম্পন্ন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড কখনোই সমর্থন করা যায় না। বিবৃতিদাতারা হলেন সেন্ট্রাল বয়েজ অব রাউজান এর সভাপতি মোঃ সাইদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ইমতিয়াজ জামাল নকিব, সাংগঠনিক সম্পাদক মইনুদ্দিন জামাল চিশতী, শাহরিয়ার হাসান সাকিব, মোহাম্মদ রিফাত, এম.এ খান, অনিক ভট্টাচার্য, তাজনবী ইমন, প্রিয়টন দে, জোনাইদ উল্লাহ তুষার, হোসাইন মাহমুদ চিশতী প্রমুখ।


(Visited 1 times, 1 visits today)

আরও পড়ুন

চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের…
কালভার্ট সংস্কার করার…
তাবলিগ জামাতের আমির…
করোনাঃ নারায়ণগঞ্জে ১…
আরব আমিরাতে প্রবাসী…
সেদ্ধ ভাত খান,…
মক্কা-মদিনায় ২৪ ঘণ্টার…
চান্দিনায় ছাত্রলীগ নেতা…
রাউজানের চিকদাইর ইউনিয়নে…

চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের নিকট…

করোনাঃ নারায়ণগঞ্জে ১ নারীর…

সেদ্ধ ভাত খান, এটা…

চান্দিনায় ছাত্রলীগ নেতা আপন…

রাউজানের চিকদাইর ইউনিয়নে ১৫০০…